Welcome to Sobujchhata Health Care Ltd.

About Our Company

আমাদের কথা

আমাদের দেশের চিকিৎসা সেবার রূপকল্প আকার আপে, আমাদের কিছু সমস্য থেকে মুক্ত হওয়া দরকার । যেগুলো আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে আষ্ঠে-পৃষ্ঠে বেধে রেখেছে, যা আমরা অনেকেই জানি । আমাদের দেশে ধুমপান-গুল-জর্দা-তামাক ইত্যাদির কুফল নেই, পানিতে আর্সেনিক তথা কোন প্রকার দুষণ থাকবেনা, খাবারে ফরমালিন অর্থাৎ কোন ভেজাল থাকবেনা – ইত্যাদি খুব দুরেরে কল্পনা নয় । ছোট ছোট অভ্যা বা ব্যবস্থা আমাদের পরিবেশকে বদলে দিয়ে স্বাস্থ্য উপযোগী করতে পারে । আমাদের দেশের সবাই ঘরে ঘরে সবাই হাত ধোয়ার সংকৃতি চলু করেছে, পরিমিত বিশুদ্ধ পানি পান করছে, খাবার ঢেকে রাখছে, নিয়মতান্ত্রিক পুষ্টিকর খাবার খাচ্ছে, স্বাস্থ্যসম্মত পায়খানা ব্যবহার করছে ইত্যদি । আর এসব স্বাস্থ্যকর জীবনের অভ্যস গড়ে তোলার জন্য আমাদের হেলখ মনিটরদের মাধ্যমে এক সামাজিক আন্দোলন চলবে ঘরে ঘরে । মোটকথা সু-স্বাস্থ্য গড়ে তোলাই হবে স্বাস্থ্য সেবার প্রথম পদক্ষেপ ।
চিকিৎসা ক্ষেত্রে বলা হয় প্রতিকারের চেয়ে প্রতিরোধই উত্তম । আমাদের মত দরিদ্র ও জনবহুল দেশে তা আরো সত্য । তাই আমাদের স্বাস্থ্য ব্যবস্থার মূলমন্ত্রই হবে প্রতিরোধ । স্বাস্থ্য সংশ্লিষ্ট সবাইকে সেভাবেই গরে তোলা হবে । তবে প্রতিরোধ সত্বেও কিছু কিছু রোগ থাকবেই এবং তার চিকিৎসাও করাতে হবে ।

আমাদের দেশে এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসার পাশাপাশি সহজলভ্যে কিছু বিকল্প চিকিৎসা পদ্ধতি রয়েছে । যেমন – হোমিও, আয়ুবের্দিক, ইউনানি । প্রাকৃতিক উপাদান উপাদান নির্ভর হওয়ায় এসব ঔষধের পার্শ্ব- প্রতিক্রিয়াও কম । এ্যালোপ্যাথিক চিকিৎসা পদ্ধতিতে এন্টিবায়োটিকের ব্যবহার প্রচুর এবং এর পার্শ্ব- প্রতিক্রিয়াও ব্যপক । তাই এন্টিবায়োটিক ঔষধ রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র ছাড়া ব্যবহার নিষিদ্ধ । কিন্তু আমাদের দেশের বাস্তবতায় সাধারন মানুষের দোরগোড়ায় রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্রের মাধ্যমে চিকিৎসা পৌছে দেওয়া প্রায় অসম্ভব, যার ফলে যত্রতত্র এন্টিবায়োটিকের ব্যবহার হচ্ছে । তাই আমরা সরকার ঘোষিত – “অযথা এন্টিবায়োটিক সেবন ক্ষতির কারণ, বিনা প্রেসক্রিপশনে তা কিনতে বারণ” এর সফল বাস্তবায়নের লক্ষ্যে সকল প্রকার চিকিৎসা পদ্ধতির সমন্বয়ে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করে থাকি ।

আমাদের স্বাস্থ্য সেবা থাকবে সাধারণ মানু্ষের দোরগোড়ায় । নিত্যপ্রয়োজনিয় ও প্রাথমিক স্বাস্থ্য সেবা দেওয়া হবে গ্রামীণ স্বাস্থ্য সেবা কেন্দ্র থেকেই । তৃণমূল পর্যায়ে স্বাস্থ্য সেবা দেওয়ার প্রধান সমস্যা হলো পর্যাপ্ত চিকিৎসকের অভাব । তাই আমরা চিকিৎসকের পাশাপাশি প্রশিক্ষণের মাধ্যমে দক্ষ্য স্বাস্থ্য কর্মী তৈরি করে নেব । যারা কাজ করবেন গ্রাম ও ওয়ার্ড পর্যায়ে । তারা বাড়ী বাড়ী গিয়ে সাধারণ মানুষের মাঝে পুষ্টি, পরিবার-পরিকল্পনা, মা ও শিশুর স্বাস্থ্য পরিচর্যা, ডায়রিয়া নিরাময়, ডায়াবেটিক-প্রেসার নির্ণয় ও নিয়ন্ত্রণ সহ টিকা দেওয়া, স্যানেটারি নেপকিনের ব্যবহার ইত্যাদি বিষয়ে উপদেশ এবং নির্দেশনা দিবেন, স্বাস্থ্য সমস্যা নিয়ে কথা বলবেন, প্রাথমিক চিকিৎসা দিতে পারবেন, প্রয়োজন অনুযায়ী রোগীকে রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তারের কাছে পাঠাবেন এবং রেজিস্ট্রার্ড ডাক্তারের ব্যবস্থাপত্র অনুযায়ী ঔষধ দিবেন । জটিল ও কঠিন রোগীদের ওয়ার্ড / ইউনিয়ন পর্যায়ে রেজিস্ট্রার্ড MBBS / DMF / সমমান ডাক্তার দ্বারা ক্যাম্পেইন এবং হেলথ সেন্টার হতে স্বল্প ভিজিটে সকল প্রকার চিকিৎসা সেবা নিশ্চিত করা হবে ।

এক কথায় আমাদের মূল লক্ষ্য প্রতিটি পরিবারকে স্বাস্থ্য সেবার মধ্যে রেখে নিয়মতান্ত্রিক ভাবে পরিচালনা করা এবং সহজ লভ্যে সকল প্রকার স্বাস্থ্য সেবা নিশ্চিত করা ।

মো: শরিফুজ্জামান খান ( সাঈদ )
ব্যবস্থাপনা পরিচালক